কুমড়ার বীজ ছোট্ট বীজে অসাধারণ গুণাগুণ


অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশের সময় : জুলাই ১০, ২০২৪ । ৪:০৮ অপরাহ্ণ
কুমড়ার বীজ ছোট্ট বীজে অসাধারণ গুণাগুণ

অনেকের কাছেই কুমড়ার বীজ অপ্রয়োজনীয় মনে হয়। কিন্তু জানেন কি, এই ছোট্ট বীজে ভরপুর পুষ্টি ও ঔষধি গুণাবলী লুকিয়ে আছে? নিয়মিত কুমড়ার বীজ খেলে আপনার শরীর পেতে পারে অসাধারণ সুবিধা।

কুমড়ার বীজের উপকারিতা:

  • রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি: ভিটামিন ই এবং জিঙ্ক সমৃদ্ধ কুমড়ার বীজ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। ফ্রি র‌্যাডিকেলের ক্ষতিকর প্রভাব থেকে শরীরকে রক্ষা করে। জিঙ্ক আমাদের শরীরকে প্রদাহ ও অ্যালার্জি থেকে মুক্ত রাখে।
  • ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ: ম্যাগনেসিয়াম সমৃদ্ধ কুমড়ার বীজ রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে, যা ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য খুবই উপকারী।
  • পুরুষ উর্বরতা বৃদ্ধি: পুরুষদের জন্য কুমড়ার বীজ বিশেষ উপকারী। কারণ এতে প্রচুর পরিমাণে জিঙ্ক থাকে যা পুরুষের উর্বরতা বৃদ্ধি করে। এটি টেস্টোস্টেরনের মাত্রা, শুক্রাণুর গুণমান ও পরিমাণও বৃদ্ধি করে।
  • ওজন কমানো: ওজন কমাতে চাইলে প্রতিদিন সকালে খালি পেটে কুমড়ার বীজ খান। এই বীজে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন ও ফাইবার থাকে যা দীর্ঘক্ষণ পেট ভরা রাখে।
  • হাড়ের স্বাস্থ্য: প্রচুর পরিমাণে ম্যাগনেসিয়াম থাকায় কুমড়ার বীজ হাড় শক্তিশালী করে। হাড় ভাঙা ও অস্টিওপরোসিসের ঝুঁকি কমায়।
  • ত্বক ও চুলের যত্ন: ভিটামিন ই সমৃদ্ধ কুমড়ার বীজ ত্বকের স্থিতিস্থাপকতা বজায় রাখে, বয়সের ছাপ দূর করে এবং ত্বককে মসৃণ করে। এতে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট চুলের ক্ষতি রোধ করে ও চুলের গোড়া শক্ত করে।
  • মানসিক স্বাস্থ্য: ম্যাগনেসিয়াম মস্তিষ্কের স্নায়ুতন্ত্রের সুস্থতা বজায় রাখে, মানসিক চাপ ও উদ্বেগ কমায়।
  • অন্যান্য উপকারিতা: কুমড়ার বীজ হজমশক্তি উন্নত করে, রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে, ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায় এবং চোখের স্বাস্থ্যের জন্যও উপকারী।

কুমড়ার বীজ খাওয়ার উপায়:

  • সরাসরি খেতে পারেন:
  • শুকনো বীজ ভেজে নাস্তা হিসেবে খেতে পারেন।
  • সলাদে মিশিয়ে খেতে পারেন।
  • স্মুদি, কর্নফ্লেক্স, ওটসে মিশিয়ে খেতে পারেন।
  • মিষ্টি তৈরিতে কুমড়ার বীজের গুঁড়া ব্যবহার করতে পারেন।

পুরোনো সংখ্যা

শনি রবি সোম মঙ্গল বু বৃহ শুক্র
 
১০১১
১৩১৫১৬১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭৩০৩১