মরা গাঙ্গে জোয়ার আর আসে না : ওবায়দুল কাদের


ছালেহ আহম্মেদ, সাভার (ঢাকা) প্রতিনিধি
প্রকাশের সময় : জুলাই ৪, ২০২৪ । ৮:৩৪ অপরাহ্ণ
মরা গাঙ্গে জোয়ার আর আসে না : ওবায়দুল কাদের

ঢাকার সাভারে হেমায়েতপুর স্ট্যান্ডে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী (প্লাটিনাম জয়ন্তী) উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বুধবার বিকেলে সাভারের হেমায়েতপুর স্ট্যান্ডে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, মরা গাঙ্গে জোয়ার আর আসে না। বেগম জিয়া বলেছিলেন আওয়ামী লীগে ভোট দিলে নাকি মসজিদে উলুধ্বনি হবে, আজান হবে না, হয়েছে? তারা অবান্তর কথা বলে। বিএনপি চলে, নাকি চালায়? কে চালায়? খালেদা জিয়া বিএনপি চালায় লন্ডন থেকে রিমোট কন্ট্রোলের মাধ্যমে। মধ্যরাতে ফরমান আসে।

বিএনপির নেতাদের দিনের আহার, রাতের ঘুম হারাম হয়ে গেছে। কখন তারেক রহমানের ডাক আসে, কখন কার চাকরি নট হয়ে যায়। ফকরুল সাহেবও শান্তিতে নাই। বড় বড় নেতারা আতঙ্কে আছে। কখন কার গদি শেষ হয়ে যায়, এজন্য তারা তারেক আতঙ্কে আছে। এজন্য তাদের রাতের ঘুমও হারাম।

বিএনপির নতুন কমিটি সম্পর্কে তিনি বলেন, নতুন কমিটি কেউ জানে? নতুন কমিটি ভুয়া, বিএনপি ভুয়া। নতুন কমিটির নতুন কর্মসূচী ভুয়া। আন্দোলন কবে হবে? ঈদের পরে, এবছর না পরের বছর। দিন যায়, মাস যায়, বছর যায় আন্দোলন আর হয় না।

সেতু মন্ত্রী বলেন, বিএনপি এখন পরনির্ভর দলে পরিণত হয়েছে। এখন কোটা আন্দোলনের উপর ভর করেছে বিএনপি। এতেও কোন কাজ হবে না।

বিএনপির মনের জোড় কমে গেছে, আর গলার জোড় বেড়ে গেছে। একটা কথা আছে মানুষের শক্তি যত কমে মুখের বিষ ততো উগ্র হয়। বিএনপির নেতাদের মুখের কোন ট্যাক্স নাই। তাদের মুখে কোন লাগামও নাই।

কোটা-বিরোধী আন্দোলনের বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, এই আন্দোলন গতবার ছিল, এখনও রয়েছে। এই কোটা আন্দোলনের ওপর ভর করেছে বিএনপি। পরের কাঁধে ভর দিয়ে আন্দোলন করে জয়ী হওয়া যায় না।

তারা (বিএনপি) ভয় দেখায় ভারত নিয়ে, তারা বলে বাংলাদেশ ইন্ডিয়া হয়ে গেলো। তারা বলে শেখ হাসিনা ইন্ডিয়া গেলে কিছুই আনতে পারে না। ৬৮ বছরের সীমান্ত সমস্যা সমাধান করা হয়েছে। তাদের সাথে ২৫ বছরের মৈত্রী চুক্তি ছিল বলে ছিটমহল সমস্যা ও সীমান্ত সমস্যা সমাধান হয়েছে। গঙ্গা নদীর পানি আমরা বুঝে পেয়েছি।দেশে রেমিট্যান্স বেড়ে যাচ্ছে, দেশের উন্নয়ন হচ্ছে, ভয়ের কোন কারন নেই।

তিনি আরও বলেন, আগুন নিয়ে এলে খবর আছে।আবারও খেলা হবে। আগুন-সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে খেলা হবে। খেলা হবে দুর্নীতির বিরুদ্ধে, লুটপাটের বিরুদ্ধে, অর্থ পাচারের বিরুদ্ধে। বাংলাদেশকে দুর্নীতিমুক্ত করতেই হবে। বাংলাদেশকে দুর্নীতি মুক্ত করতেই হবে। শেখ হাসিনার যে অঙ্গীকার আমরা অক্ষরে অক্ষরে পালন করেই ছাড়বো। একটা কথা বলি, মন্ত্রী যদি সৎ হয়, সচীব যদি সৎ হয় ওই মন্ত্রণালয়ে দুর্নীতি হবে না। আমরা জনপ্রতিনিধিরা সৎ হলে দুর্নীতি পালিয়ে যাবে।

ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বেনজির আহমেদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক পনিরুজ্জামান তরুণের সঞ্চালনায় এসময় প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান এমপি, আওয়ামী লীগের সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য এ্যাড. কামরুল ইসলাম এমপি, ঢাকা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান, সাভারের সংসদ সদস্য সাইফুল ইসলাম, সাবেক ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান, সাভার উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মঞ্জুরুল আলম রাজীব, ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফখরুল আলম সমর, আশুলিয়ার ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফারুক হাসান তুহিনসহ আরও অনেকে এসময় বক্তব্য রাখেন।

পুরোনো সংখ্যা

শনি রবি সোম মঙ্গল বু বৃহ শুক্র
 
১০১১
১৩১৫১৬১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭৩০৩১