বিদ্যুতের দাম গ্রাহক পর্যায়ে বাড়ছে না : প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ


অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশের সময় : জুলাই ৪, ২০২৪ । ৬:১৪ অপরাহ্ণ
বিদ্যুতের দাম গ্রাহক পর্যায়ে বাড়ছে না : প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ
ফাইল ছবি

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ ঘোষণা করেছেন যে, বিতরণ কোম্পানিগুলোর লোকসান সত্ত্বেও আপাতত গ্রাহক পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হচ্ছে না। বৃহস্পতিবার বিদ্যুৎ বিভাগে বাজেট নিয়ে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে প্রতিমন্ত্রী এসব কথা জানান।

নসরুল হামিদ বলেন, “আমাদের প্রধান লক্ষ্য এখন নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ করা।” তিনি আরও জানান, আইএমএফ বছরে চারবার বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির শর্ত দিয়েছে এবং এর পরিপ্রেক্ষিতে ইতোমধ্যে দু’বার দাম বাড়ানো হয়েছে। ভবিষ্যতে সরকারের নির্দেশে বিদ্যুতের দাম পুনরায় বাড়ানো হতে পারে, তবে আপাতত গ্রাহক পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম বাড়ছে না।

প্রতিমন্ত্রী ঝড় ও বন্যার কারণে বিদ্যুৎ বিতরণব্যবস্থার ক্ষতির কথা উল্লেখ করেন। তিনি জানান, “আমাদের ৩০ হাজার পোল বিনষ্ট হয়েছে এবং সিলেট অঞ্চলের সবক’টি সাবস্টেশন বন্যার পানির নিচে চলে গেছে।”

বিদ্যুৎ ঘাটতির প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “পায়রা বিদ্যুৎকেন্দ্র পুনরায় উৎপাদন শুরু করেছে এবং আদানির বিদ্যুৎকেন্দ্রের একটি ইউনিট চালু হয়েছে। এতে বিদ্যুৎ সরবরাহ বেড়েছে এবং পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে আসছে।”

গ্যাসের স্বল্প চাপের বিষয়ে তিনি জানান, “ঝড়ের কারণে আমাদের একটি ভাসমান এলএনজি টার্মিনাল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। আগামী ১৪ থেকে ১৫ জুলাই টার্মিনালটি পুনরায় গ্যাস সরবরাহ শুরু করবে।”

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আসন্ন চীন সফর নিয়ে নসরুল হামিদ বলেন, “বিদ্যুৎ সঞ্চালন ব্যবস্থা ও বিতরণব্যবস্থার কিছু প্রকল্প নিয়ে চীন সফরে আলোচনা হবে। এতে প্রায় এক বিলিয়ন ডলারের বিনিয়োগ আসতে পারে।”

প্রতিমন্ত্রী আশা প্রকাশ করেন যে ২০২৭ সালের মধ্যে গ্যাস-সংকট দূর করা সম্ভব হবে এবং আরও দুটি ভাসমান এলএনজি টার্মিনাল নির্মাণের লক্ষ্য রয়েছে।

নেপাল থেকে বিদ্যুৎ আমদানির প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “আগামী মাসের শেষের দিকে নেপাল থেকে বিদ্যুৎ আমদানির চুক্তি সই হতে পারে।”

নবায়নযোগ্য জ্বালানিতে বিদ্যুৎ উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে তিনি বলেন, “২০২৫ সালের মধ্যে আমাদের গ্রিডে ৬ হাজার মেগাওয়াট নবায়নযোগ্য জ্বালানি বিদ্যুৎ যোগ হবে।”

সাগরের তেল-গ্যাস অনুসন্ধানের জন্য ডাকা দরপত্রের সময় বাড়ানোর বিষয়ে তিনি জানান, এই সিদ্ধান্তের বিষয়ে এখনো চূড়ান্ত কিছু হয়নি।

পুরোনো সংখ্যা

শনি রবি সোম মঙ্গল বু বৃহ শুক্র
 
১০১১
১৩১৫১৬১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭৩০৩১