শেষ মুহূর্তের বেচাকেনায় জমে উঠেছে চট্টগ্রামের কোরবানির পশুর হাট


নুরুল আফছার, স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশের সময় : জুন ১৫, ২০২৪ । ১১:৫২ অপরাহ্ণ
শেষ মুহূর্তের বেচাকেনায় জমে উঠেছে চট্টগ্রামের কোরবানির পশুর হাট

আর মাত্র একদিন পরেই মুসলমানদের দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব ঈদুল আযহা। সেই হিসাবে পশু বেচা কেনার সময় হাতে মাত্র একদিন। শেষ মুহূর্তের বেচাকেনায় জমে উঠেছে চট্টগ্রামের কোরবানির পশুর হাট। এই সময়টাতে ব্যস্ত ক্রেতা বিক্রেতা উভয়ই। গত কয়েক বছর ধরে দেখা গেছে কোরবানি দাতাদের অনেকে খামার থেকে আগে ভাগে কোরবানি পশু  ক্রয় করে রেখেছেন। আর কিছু ক্রেতা  এলাকার আশেপাশের অঘোষিত হাট থেকে কিনে নিয়েছেন পছন্দের কোরবানীর পশু। এ বছরও এর ব্যতিক্রম হয় নি। সে কারণে বাজারমুখী ক্রেতা কম। কিন্তু ঈদের সময় যতোই ঘনিয়ে আসছে ততোই বাড়ছে বেচাকেনা।

গতকাল শুক্রবার (১৪ জুন) থেকে পশুর হাটে বেচাকেনা বেড়েছে। সেই হিসাবে বাজার এখন জমজমাট। কোরবানি উপলক্ষে চসিক অনুমোদিত নগরের ১০টি পশুর হাট ক্রেতা বিক্রেতা ও গবাদি পশুতে ভরপুর । চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের ব্যবস্থাপনায় বসা হাটের মধ্যে স্থায়ী তিনটি হচ্ছে- সাগরিকা পশুর বাজার, বিবিরহাট গরুর হাট ও পোস্তারপাড় ছাগলের বাজার। দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে বেপারী, খামার মালিক ও গৃহস্থরা গরু, ছাগল, মহিষ, ভেড়া এনেছেন পশুর হাটে।ব্যবসায়ী ও ক্রেতারা বলছেন, শহরে কোরবানি ঈদের একদিন আগে থেকে বেচাকেনা হয়ে থাকে। কারণ, গ্রামের মতো পশু রাখার জায়গা নেই শহরে । এ সময়ে কোরবানির পশু রাখা একটি বড় সমস্যা। তারা আশাবাদী, এখন বিক্রি কম হলেও যারা কেনার তারা ঠিকই কিনে নেবেন।

২০টি বড় আকারের গরু নিয়ে সাগরিকা পশুর হাটে এসেছেন কুষ্টিয়ার বেপারি আবদুল হাই মালিথা। তিনি জানান, কয়েক বছর ধরেই এই হাটে গরু নিয়ে আসেন তিনি। তার সঙ্গে আরও কয়েকজন বেপারি এসেছেন গরু নিয়ে। তার প্রতিটি গরু দেড় লাখ টাকা থেকে শুরু করে আড়াই লাখ টাকা পর্যন্ত বিক্রির আশা করছেন তিনি।

নগরের হালিশহর এলাকার বাসিন্দা সফিউল ইসলাম জানান, গরু রাখার সমস্যার কারণে প্রতিবার গরু কিনতেন ঈদের এক দিন আগে কিন্তু এবার তিনি দুই দিন আগেই গরু কিনেছেন। তিনি বলেন, গত দুই বছর ঈদের আগের দিন গরু কিনতে গিয়ে হাটে গরু পাইনি। যেটি পেয়েছি তা পছন্দ হয়নি। আবার দামও বেশি গেছে। তাই এবার আগেই গরু কিনেছি। ভালো গরু কিনতে পেরে বেজায় খুশি তিনিসহ তার পরিবারের সদস্যরা।

শনিবার (১৫ জুন) সকালে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার (অ্যাডিশনাল আইজিপি) কৃষ্ণ পদ রায় চট্টগ্রামের বিভিন্ন পশুর হাট পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি হাটের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে ঘুরে দেখেন এবং সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন।

এ সময় পুলিশ কমিশনার ভোরের চেতনা প্রতিনিধিকে বলেন, আমার জানামতে সাগরিকা পশুর হাট চট্টগ্রাম সবচেয়ে বড় হাট। এ হাটে যাতে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে, সেদিকে মহানগরী পুলিশ সতর্ক দৃষ্টি রাখছে।

পুরোনো সংখ্যা

শনি রবি সোম মঙ্গল বু বৃহ শুক্র
১০১১১৩
১৫১৬১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭
৩০