সর্বশেষ :

হেলেপড়া যশোর জেলা পরিষদ’র গাছ আত্মসাতের পায়তারা


কল্যাণ রায় (জয়ন্ত), যশোর
প্রকাশের সময় : মে ২৮, ২০২৪ । ৮:৫২ অপরাহ্ণ
হেলেপড়া যশোর জেলা পরিষদ’র গাছ আত্মসাতের পায়তারা
যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার ছুটিপুরস্থ গঙ্গানন্দপুর ইউনিয়নের ছুটিপুর-ব্যাংদা সড়কে ঘুর্ণিঝড় রেমালের আঘাতে হেলে পড়া বৃহৎ আকৃতির দু’টি রেইন্ট্রি গাছ আত্মসাতের পায়তারা চলছে। ইউপি সদস্য মামুন দু’টি গাছের একটি কেটে নিয়েছে এবং অন্যটি কাটার পরিকল্পনা করছে বলে এলাকাবাসী জানিয়েছেন।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার ছুটিপুরস্থ গঙ্গানন্দপুর ইউনিয়নের ছুটিপুর-ব্যাংদা জিওসি রোডে ঘুর্ণিঝড় রেমালের আঘাতে যশোর জেলা পরিষদের আওতাধীন বৃহৎ আকৃতির দু’টি রেইট্রি প্রজাতির গাছ হেলে পড়ে। গঙ্গানন্দপুর ইউপি সদস্য মামুন ও তার সহযোগীরা যশোর জেলা পরিষদ ও গঙ্গানন্দপুর ইউপি চেয়ারম্যান’কে না জানিয়ে গাছ দু’টি কাটা শুরু
করেন বলে এলাকাবাসী  জানিয়েছেন। দু’টি গাছের মধ্যে একটি কেটে নেওয়া হয়েছে, তার কিছু অংশ রাস্তার উপর, কিছু অংশ পাশ্ববর্তী স-মিলের পাশে এবং কিছু অংশ  ইউনিয়ন পরিষদের ভিতরে ও বাইরে রেখে দিয়েছেন। অপর একটি গাছের ডালপালাগুলো ছাঁটা হয়েছে।
এ বিষয়ে  ইউপি সদস্য মামুন হোসেন’র নিকট মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি জানান, ঝড়ে রাস্তার উপর গাছ দু’টি হেলে পড়ে যাওয়ায় আমি গাছ দু’টি কাটা শুরু করেছি।
একটি গাছ কাটা হয়েছে, কিছু অংশ রাস্তায় এবং কিছু অংশ ইউনিয়ন পরিষদে রাখা হয়েছে। জেলা পরিষদ, যশোর গাছ কাটার বিষয়ে জানে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, জেলা পরিষদের সদস্য বাপ্পি হোসেন’কে জানিয়ে তিনি গাছ কেটেছেন। তবে গাছ কাটার পর ইউনিয়ন পরিষদে নেওয়ায় সময় এসি ল্যান্ড সাহেবকে জানিয়েছেন বলে তিনি জানান।
গাছ কাটার বিষয়ে গঙ্গানন্দপুর প্যানেল চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম’র নিকট মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি বলেন, গাছ কাটার বিষয়ে আমি কিছু তানতাম না, তবে পরে শুনেছি।
যশোর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুজ্জামান পিকুল গাছ কাটার বিষয়ে কিছু জানেন কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, জেলা পরিষদের কোন গাছ কাটা হয়েছে বলে তাকে কিছু জানানো হয়নি। তিনি এবিষয়ে কিছুই জানেন না।
এলাকাবাসী জানান, বৃহৎ আকৃতির দু’টি রেইন্ট্র্রি গাছ হেলে পড়েছে। যার একটি গাছ কেটে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। যেহুতে গাছ দুটি জেলা পরিষদের, সেহুতে জেলা পরিষদ গাছ দু’টি পাবেন কি-না তা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন স্থানীয় জনগন। গাছ দু’টি যেন আত্মসাত না হয় সে বিষয়ে সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তরের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন সচেতন এলাকাবাসী।

পুরোনো সংখ্যা

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১