সর্বশেষ :

নেত্রকোনায় ছাত্রদল নেতার হাত-পায়ের রগ কেটে জখম, ২৬ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা


রিপন কান্তি গুণ, বারহাট্টা:
প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারি ২০, ২০২৪ । ৫:১৩ অপরাহ্ণ
নেত্রকোনায় ছাত্রদল নেতার হাত-পায়ের রগ কেটে জখম, ২৬ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা

নেত্রকোনায় পৌর ছাত্রদলের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম আহ্বায়ক মশিউর রহমান বাপ্পীর হাত-পায়ের রগ কেটে ও কুপিয়ে গুরুতর জখম করে দুবৃর্ত্তরা। এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। বর্তমানে তাকে আইসিইউতে ভর্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। চিকিৎসকরা তার অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন।

আজ (২০ ফেব্রুয়ারি) মঙ্গলবার সকালে নেত্রকোনা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

আহত ছাত্রদল নেতার নাম মশিউর রহমান বাপ্পী। তিনি শহরের কুড়পার এলাকার মনু মিয়া মাস্টারের ছেলে ও নেত্রকোনা পৌর ছাত্রদলের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম আহ্বায়ক। জেলা যুবদলের জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি আব্দুল্লাহ আল মামুন খান রনি এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মামলার অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, গত ১৪ ফেব্রুয়ারি (বুধবার) রাতে সদর উপজেলার অনন্তপুর গ্রামের একটি ওরশ অনুষ্ঠানে গেলে রাত ১২টার দিকে বাপ্পীর ওপর এ হামলার ঘটনা ঘটে। হামলাকারীরা বাপ্পীর হাত ও পায়ের রগসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে গুরুতর।জখম করে। তার ডাক–চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়।

স্থানীয়রা বাপ্পীকে উদ্ধার করে দ্রুত নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালে পাঠান।

সেখানে তার অবস্থার অবনতি ঘটলে বুধবার রাত ৩টার দিকে মুমূর্ষু অবস্থায় বাপ্পীকে শ্যামলী হৃদ্‌রোগ ইনস্টিটিউটে প্রেরণ করা হয়। বর্তমানে তাকে আইসিইউতে ভর্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তবে তার অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকেরা।

পুলিশ সূত্রে জানাযায়, আহত বাপ্পীর মামা মো. জাকারিয়া বাদী হয়ে শুক্রবার নেত্রকোনা মডেল থানায় মামলা করেন। মামলায় জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক অনিক মাহবুব চৌধুরী, যুগ্ন সম্পাদক আলমগীর হোসেন সুমনসহ ৬ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরও ২০ জনকে আসামি করা হয়।

আসামিদের সবাই ছাত্রদলের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত। মামলার পরপরই এ মামলার এজহারভুক্ত আসামি জেলা সদরের অনন্তপুর গ্রামের রনি মিয়াকে (২৫) গ্রেফতার করে আদালতে পাঠায় পুলিশ।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বাপ্পীর জবানবন্দিতে- জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক অনিক মাহবুব চৌধুরী, যুগ্ন সম্পাদক আলমগীর হোসেন সুমনসহ সদর উপজেলা ছাত্রদল ও সরকারি কলেজ ছাত্রদলের কয়েকজন নেতার নাম প্রকাশ করেন। এ সময় তাদের সঙ্গে আরও ১৫-২০ জন ছিল বলেও জানান বাপ্পী।

হামলার বিষয়ে জানতে চাইলে জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক এস এম মনিরুজ্জমান দুদু বলেন, বাপ্পীর দেওয়া জবানবন্দিতে জানা গেছে, হামলাকারী কারা এবং হামলাকারী বেশ কয়েকজন ছাত্রদল নেতার নাম বলেছে বাপ্পী। এখন সে জীবন–মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে থেকে যেসব হামলাকারীর নাম বলেছে, তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থার পাশাপাশি সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, ‘বাপ্পী দলের জন্য নিবেদিত প্রাণ একজন মেধাবী ছাত্র নেতা। সংকটকালীন সময়ে সাহসী ভূমিকা নিয়ে জেলায় ছাত্রদলকে সংগঠিত করে দলকে শক্তিশালী করেছে। তাকে এভাবে নৃশংসভাবে যারা জখম করেছে তাদের কঠোর শাস্তি দেওয়া হলে এমন ঘটনা ঘটানোর সাহস আর কেউ পাবে না।

নেত্রকোনা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম বলেন, মামলার পরপরই এজহারভুক্ত একজন আসামিকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। ঘটনা তদন্তের পাশাপাশি হামলায় জড়িত অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

পুরোনো সংখ্যা

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯