সর্বশেষ :

চাচার হাতে ভাতিজি খুন,সহায়তা করেছেন মা


মিন্টু স্টাফ রিপোর্টার ঢাকা:
প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারি ৭, ২০২৪ । ৯:২৪ অপরাহ্ণ
চাচার হাতে ভাতিজি খুন,সহায়তা করেছেন মা

পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলার বেতাগী সানকিপুর ইউনিয়নের রামভল্লব গ্রামে ঘটে এই চাঞ্চল্যকর ঘটনা। আমাদের দশমিনা প্রতিনিধি ফয়েজ আহমেদ জানান- প্রতিপক্ষকে গায়েল করার জন্যই ভাতিজি মরিয়কে হত্যা করলো চাচা সেন্টু ও মা রিনা বেগম। আাদালতে স্বীকারোক্তি।

উপজেলার বেতাগী সানকিপুর ইউনিয়নের রামভল্লব গ্রামে গত শনিবার(৩ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় আট বছরের শিশু মারিয়মকে হত্যার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেন চাচা সেন্টু মৃধা ও মা রিনা বেগম। অবশ্য স্ত্রী রিনা বেগমের এই কুটকৌশলের কোনটাই জানতেননা স্বামী মকবুল মৃধা।

ঘটনা ভিন্নখাধে প্রবাহিত করার লক্ষ্যে স্ত্রী রিনা স্বামীকে ভুল বুঝাইয়া, হারুন মৃধা, রাজ্জাক মৃধা, শাহজাহান মৃধা ও বারেক মৃধা চার ভাইয়ের ছেলেদের সন্দেহজনক আসামী করে ৫ ফেব্রুয়ারী তারিখে দশমিনা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

দশমিনা থানার মামলা নং -। ঐ মামলায় ১ হারুন মৃধা ছেলে রায়তুল, ২ আবুল মৃধার ছেলে জিহাদ ৩. শাহজাহান মৃধার ছেলে ছিদ্দিক ৪ হুমায়ন মৃধার ছেলে সাকিব এবং ভাই জাকির মৃধাকে আসামী করা হয়।

এদিকে পুলিশের কাছে দেয়া জবানবন্দি ও বাদীর স্ত্রী ও ছোট ভাই সেন্টুর কথা-বার্তায় ব্যাপক সন্দেহ হলে, গত সোমবার প্রকৃত সত্য উদঘটনে দশমিনা থানা পুলিশ নিহত মরিয়মের মা রিনা বেগম ও চাচা সেন্টুকে প্রাথমিক জিঞ্জাসাবাদের জন্য আটক করে।

অতপর মঙ্গলবার সকালে মরিয়মের চাচা সেন্টু ও মা রিনা বেগমকে দশমিনা সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আাদালতে হাজির করা হলে,চাচা সেন্টু ১৬৪ ধারায় মরিয়মকে হত্যা ঘটনার স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দি দশমিনা সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আাদলতের বিচারক সমির মল্লিক এর সামনে স্বীকার করেন।

আজ বুধবার সকাল ১১ ঘটিকায় পটুয়াখালী জেলা পুলিশ সুপার মোঃ সাইদুল ইসলাম বিপিএম,পিপিএম মরিয়ম হত্যার সকল কিছুই সরেজমিনে নিজেই তুলে ধরেন। এসময় এলাকার শত শত উপস্থিত জনগন মরিয়ম হত্যার দায় চাচা সেন্টু মৃধা ও সাহায্যকারী মা রিনা বেগমকে সর্বোচ্চ শাস্তির দাবী জানান।

পুরোনো সংখ্যা

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯