লা লিগা: শেষ মুহূর্তে গোল হজম করে এ্যাথলেটিকোর সাথে পয়েন্ট হারালো রিয়াল


অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারি ৫, ২০২৪ । ৪:০৩ অপরাহ্ণ
লা লিগা: শেষ মুহূর্তে গোল হজম করে এ্যাথলেটিকোর সাথে পয়েন্ট হারালো রিয়াল

মার্কোস লোরেন্টের ৯৩ মিনিটের গোলে লা লিগার শীর্ষে থাকা নগর প্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদের সাথে ১-১ গোলের স্বস্তির ড্র নিয়ে মাঠ ছেড়েছে এ্যাথলেটিকো মাদ্রিদ। স্প্যানিশ মিডফিল্ডার এ্যাথলেটিকোকে গুরুত্বপূর্ণ  এক পয়েন্ট পাইয়ে দেওয়ায়  দিয়েগো সিমিওনের দলের শিরোপা স্বপ্ন টিকে থাকলো।

ম্যাচ শুরুর ঠিক আগে অসুস্থতার কারনে ভিনিসিয়াস জুনিয়রের স্থানে ব্রাহিম দিয়াজ কাল মূল দলে খেলেছেন। দিয়াজের গোলেই সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে এগিয়ে যায় মাদ্রিদ। এই ড্রয়ে জিরোনার থেকে দুই পয়েন্ট এগিয়ে থাকলো মাদ্রিদ। শনিবার রিয়াল সোসিয়েদাদের সাথে ড্র করে জিরোনাও পয়েন্ট হারিয়েছে। চতুর্থ স্থানে থাকা এ্যাথলেটিকোর থেকে ১০ পয়েন্ট এগিয়ে রয়েছে মাদ্রিদ।

কাতালান মিনোস জিরোনা আগামী সপ্তাহে রিয়াল মাদ্রিদ সফরে যাবে, এই ম্যাচের ফলাফল শিরোপা জয় বড় প্রভাব ফেলবে।
কাল ম্যাচ শেষে রিয়াল মাদ্রিদ কোচ কার্লো আনচেলত্তি বলেছেন, ‘আমাদের এই মুহূর্তে শান্ত থাকতে হবে। আমরা দুই পয়েন্টে এগিয়ে রয়েছি। আগামী শনিবার আরো একটি জয়ের মাধ্যমে আমাদের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করতে হবে।’

মাদ্রিদকে জিততে না দিয়ে দারুন খুশী লোরেন্ট  বলেছেন, ‘পুরো ম্যাচে আমরা কঠোর পরিশ্রম করেছি। ম্যাচ শেষে যার পুরস্কারও পেয়েছি। এই এক পয়েন্ট যথেষ্ঠ গুরুত্বপূর্ণ। তাদেরকেও এক গোলের বেশী দিতে দেইনি। যদিও এর অনুভূতি জয়ের  সমান না, তারপরও ম্যাচটি যেভাবে শেষ হয়েছে তাতে ড্র নিয়ে আমরা সন্তুষ্ট।’

এক মাসের ব্যবধানে এনিয়ে তৃতীয় মাদ্রিদ ডার্বি অনুষ্ঠিত হলো। এর মধ্যে প্রথম ম্যাচে রিয়াল জয়ী হয়েছিল। এ্যাথলেটিকোকে পরাজিত করে গ্যালাকটিকোরা স্প্যানিশ সুপার কাপ জয় করে।

এক সপ্তাহ পর লস ব্লাঙ্কোসদের কোপা ডেল রে থেকে বিদায় করে সিমিওনের শিষ্যরা। এছাড়া সেপ্টেম্বরে লা লিগায় রিয়ালকে পরাজিত করেছিল এ্যাথলেটিকো। এবারের মৌসুমে যেকোন প্রতিযোগিতায় একমাত্র দল হিসেবে রিয়ালকে পরাজিত করেছে এ্যাথলেটিকো। কিন্তু শেষ পর্যন্ত জয়ের হ্যাট্রিক পূরনে ব্যর্থ হয়েছে।

ম্যাচের আগে গলার সমস্যার কারনে আনচেলত্তি মূল দলের বাইরে রেখেছিলেন ভিনিসিয়াসকে। এ সম্পর্কে মাদ্রিদ বস বলেন, ‘ওয়ার্ম-আপে ভিনি খুব একটা স্বস্তি বোধ করছিল না। আমার হাতে দুটি উপায় ছিল, ব্রাহিম ও জোসেলু। শেষ পর্যন্ত রক্ষনাত্মক কৌশলের কারনে ব্রাহিমকেই বেছে নেই।’

এন্টোনিও রুডিগার পুরোপুরি ফিট না থাকায় ফুল-ব্যাক ডানি কারভাহালকে রক্ষনভাগের মূল দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল। এডার মিলিটাও ও ডেভিড আলাবাও ইনজুরিতে রয়েছেন। ম্যানচেস্টার সিটির সাবেক প্লেমেকার দিয়াজ ২০ মিনিটে এ্যাথলেটিকোর রক্ষনভাগকে ফাঁকি দিয়ে রিয়ালকে এগিয়ে দেন।

এ্যাক্সেল উইটসেল ও সাভিচকে হতাশ করেন মাদ্রিদ গোলরক্ষক আন্দ্রি লুনিন। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে আঁতোয়ান গ্রীজম্যানের কর্ণার থেকে সাভিচের হেডে গোল পেয়েছিল সফরকারীরা। কিন্তু বিতর্কিত অফসাইডের কারনে তা বাতিল করা হয়।

মাদ্রিদের সর্বোচ্চ গোলদাতা জুড বেলিংহাম সাভিচের বিপক্ষে পেনাল্টির আবেদন করেও সফল হননি। পোস্টের খুব কাছে থেকে রডরিগোর শট রুখে দেন ইয়ান ওবলাক।

রিয়াল যখন নিশ্চিত জয়ের দিকে এগিয়ে যাচ্ছিল ঠিক তখনই লোরেন্টের গোলে সমতা ফেরায় এ্যাথলেটিকো। এই প্রথমবারের মত কারভাহাল ও সেন্টার-ব্যাক নাচো ফার্নান্দেজ ভুল করেন, সেই সুযোগই কাজে লাগিয়েছেন লোরেন্টে।

 

সূত্র : বাসস

পুরোনো সংখ্যা

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯