সর্বশেষ :

ঝিনাইদহে আদম দালাল প্রতারক  হাসানের খপ্পরে পড়ে সর্বশান্ত সিরাজুল সাইফুলসহ আরও অনেকে।


মোঃ আনোয়ার হোসেন  ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি:
প্রকাশের সময় : জানুয়ারি ১৫, ২০২৪ । ৫:৫৩ অপরাহ্ণ
ঝিনাইদহে আদম দালাল প্রতারক  হাসানের খপ্পরে পড়ে সর্বশান্ত সিরাজুল সাইফুলসহ আরও অনেকে।
ঝিনাইদহের আদম দালাল প্রতারক হাসানের খপ্পরে পড়ে সর্বশান্ত হয়েছেন সিরাজুল ইসলাম সাইফুল ইসলামসহ আরও অনেকে।
ঝিনাইদহ সদর উপজেলার ভবানীপুর গ্রামের আয়ুব হোসেনের ছেলে সিরাজুল ইসলাম ও বাবর আলী লস্কারের ছেলে সাইফুল ইসলামকে সউদী আরবে লোভনীয় কাজ দেওয়ার নাম করে উভয়ের নিকট থেকে ৪ লক্ষ ৫০ হাজার করে মোট  ৯  লক্ষ টাকা হাতিয়ে  নিয়েছেন ডাকবাংলা মাগুরা পাড়ার আদমব্যবসায়ী প্রতারক  হাসান ।
প্রতারক হাসান  তাদেরকে সউদী আরবে প্লাস্টিকের কারখানায় কাজ দেওয়ার কথা বলে বিদেশে পাঠানোর হয় বলে সিরাজুল ও সাইফুলের পরিবার থেকে জানা যায়।
কিন্তু তাদেরকে সউদী নিয়ে  যাওয়ার পর আকামা করে দেওয়া হয়নি এমনকি যে কাজ দেওয়ার কথা সে কাজও দেওয়া হয়নি ।এখন তারা দুজনই সৌদি আরবে চুরি করে অবৈধ ভাবে একটি পলিথিন কারখানায় কাজ করে কোন রকম থাকা খাওয়ার মতো অর্থ উপার্জন করছে।
এবং সেখানে কঠোর পরিশ্রম ও মানবতার জীবন যাপন করছেন। সরেজমিনে গিয়ে জানা যায় সিরাজুল ইসলাম ও সাইফুল ইসলামের উভয়ের ছোট ছোট ২টা করে সন্তান আছে যাতের মুখে তিনবেলা দুমুঠো খাবার তুলে দিতে পারছেন না তাদের পরিবার। কারন তাদের মাঠের চাষের জমি ও হালের গরু বিক্রি করে ধার দেনা করে তাদেরকে বিদেশে পাঠানো হয়।
বর্তমানে তাদের সংসার এক প্রকার না খেয়েই চলছে।ভুক্তভোগী পরিবারের স্বজনরা বলেন হাসানের নিকট আমরা বহুবার বলেছি আমাদের ছেলেদের আকামা করে দেন এবং তাদেরকে যে কাজের কথা বলে নিয়ে গেছেন সেই কাজের ব্যবস্থা করে দেন কিন্তু সে আমাদের কোন কথাই শোনেন না বরং উল্টো হুমকি ধামকি দেয়।
সিরাজুল ও সাইফুলের স্ত্রী,  বাবা -মা বলেন আমাদের গ্রামের মান্নান ওরুপে মানার আত্মীয় আদম দালাল হাসান, মানা এবং তার বউয়ের উপর বিশ্বাস করে তার বাড়িতে বসেই আমরা টাকা লেনদেন করি অথচ তারা এখন কোন ভুমিকা রাখছে না।
আমরা চাই মানার আত্মীয় হাসান আমাদের টাকা ফেরৎ দিক না হয় সৌদি আরবে তাদের কাজের ব্যবস্থা করে দিক তা না হলে আমরা থানায় পাওনা টাকা চেয়ে কেস করবো।
একই এলাকার আরও দুজন মিজানুর রহমান এক লাখ  ও সাইদুর রহমান দুই লাখ টাকা দিয়েছেন মানার মাধ্যমে  হাসানের নিকট। সিরাজুল ইসলাম ও সাইফুল ইসলামের সমস্যা দেখে তারা বলেন আমরা বিদেশ যাবো না আমাদের টাকা ফেরৎ দেন।
দালাল হাসান তাদের টাকা ফেরৎ না দিয়ে বরং উল্টো ভিসার দাম বাবদ আরও দুই লাখ ৮০ হাজার করে টাকা উভয়ের নিকট দাবি করছেন এবং না দিলে নাকি তাদেরকে দেখে নেবেন বলেও হুমকি দিচ্ছেন।
প্রতারক আদম দালাল হাসানের সাথে কথা বলার জন্য  ডাকবাংলা বাজারে অবস্থিত তার লেদকারখানায় গেলে দেখা যায় তিনি নেই অথচ  আগে থেকেই হরিনাকুন্ডু উপজেলার হিজলী গ্রামের বাহার আলী বিশ্বাসের ছেলে আমিরুল ইসলামের বউ ছেলে আরও বেশ কয়েকজন বসে আছেন প্রতারন দালান হাসানের  ধরার জন্য ।
আমিরুলেও নাকি প্রতারক  হাসান প্লাস্টিকের কারখানায় কাজ দেওয়ার কথা বলে বিদেশে পাঠিয়েছে আজ দেড় বছর হলো তাকেও সে কাজ এবং আকামা করে দেনননি।
আমিরুলও সৌদি আরবে বর্তমানে মানবতার জীবন যাপন করছেন। আমিরুল ইসলাম দালাল হাসানের নিকট ৩ লাখ ৮০ হাজার টাকার মাধ্যমে সৌদি গিয়েছেন বলে জানা যায়।
এলাকাবাসীর দাবি সমাজ থেকে এই সমস্ত আদম দালাল  চক্রকে আইনের আওতায় এনে কঠিন শাস্তির ব্যবস্থা করা উচিৎ । এব্যাপারে আদম দালাল প্রতারক  হাসানের নিকট মোবাইলে ফোন করলে তিনি বলেন তারা এখন দুজনই একটি টিস্যু  ফ্যাক্টরিতে কাজ করছেন এবং ভালো বেতন পাচ্ছেন। আমি কারও সাথে প্রতারণা করিনি। এটুকু বলেই ফোন কেটে দেন।

পুরোনো সংখ্যা

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১