ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের বেহাল চিকিৎসা ব্যবস্থা


ইব্রাহিম মিয়া, ঝিনাইদহ (সদর) প্রতিনিধি
প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ১৩, ২০২৩ । ৬:০৯ অপরাহ্ণ
ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের বেহাল চিকিৎসা ব্যবস্থা
প্রতীকী ছবি

অনন্য এক চমৎকার চিকিৎসা ব্যবস্থা ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে। যার কারনে গুরুতর অসুস্থ রোগীকে অহরহ যেতে হচ্ছে প্রাইভেট হাসপাতালগুলোতে। আড়াইশো বেডের হাসপাতাল। আজ একটি পরিবারের তিনটি লোক সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয়ে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি হয়েছে। দুই জনের ঠ্যাং ভেঙে গেছে আর একজনের হাত ভেঙে গেছে। প্রচন্ড যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছে। জরুরি বিভাগের একজন মেডিকেল অফিসার তাদেরকে দেখলেন। প্রাথমিকভাবে যতটুকু করার ততটুকু চিকিৎসা দেয়ার পর ওয়ার্ডে ভর্তি করলেন। কিন্তু তাদের দেখাতে হবে অর্থোপেডিক সার্জারি ডাক্তার। হাসপাতালে অর্থোপেডিক সার্জারি ডাক্তার আছে কিন্তু এখন তার ডিউটি নাই। হাসপাতালের জরুরী বিভাগের ডাক্তার জানালেন আগামীকাল সকাল ১১ টার দিকে অর্থপেডিক সার্জারি ডাক্তার আসবে তিনি দেখবেন এবং বলতে পারবেন কি করতে হবে?

খোঁজ নিয়ে জানা গেল হাসপাতালের কর্তব্যরত যে ডাক্তার তিনি ঝিনাইদহ সমতা হাসপাতালে বসেন। রোগীকে সেখানে নিয়ে গেলে তিনি দেখতে পারবেন। তাহা ছাড়া এই সময় তিনি আর হাসপাতালে আসবেন না। রোগীর আত্মচিৎকারে নিরুপায় হয়ে রোগীর স্বজনেরা ওই ডাক্তারের কাছে নিয়ে গেলেন। ওই ডাক্তার তখন তাদের পরামর্শ দিলেন একটি প্রাইভেট হাসপাতালে ভর্তি করলে তিনি দেখাশোনা করতে পারবেন। তখন বাধ্য হয়ে রোগীর স্বজনেরা সেই তিনজন রোগীকে প্রাইভেট হাসপাতালে নিয়ে গেলেন। এই হলো এক চমৎকার চিকিৎসা ব্যবস্থা ঝিনেদার সদর হাসপাতালের। মানবিক ডাক্তারদের আত্মকাহিনীর গল্প শুনলে নিষ্ঠুর জল্লাদ ঘৃণায় মুখ লুকিয়ে নেয়।

এই ব্যবস্থা উত্তরণ করবে কে? জনগণ না সরকার। হায়রে সরকারি হাসপাতাল। জনগণের হাসপাতাল। কৌশলে মানুষের পকেট কাটার হাসপাতাল। কসাই ডাক্তারদের হাসপাতাল। সরকারের ভূমিকা ঠুটো জগন্নাথের মতো যা দেখা এবং বলার কেউ নেই।খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে চলছে হসপিটালের কার্যক্রম সেবার বালাই নেই। আর প্রাইভেট হাসপাতালগুলোতে সেবার নামে চলে টাকার  বাণিজ্য। তাই সাধারণ জনগণ  আজ কোথায় যাবে এটা জনে মনে প্রশ্ন।

পুরোনো সংখ্যা

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১