সর্বশেষ :

চিতই পিঠার মধ্যেই সন্তানদের ভবিষ্যৎ স্বপ্ন দেখেন মোমেনা


রোকসানা আক্তার মজুমদার, ব্যুরো চীফ কুমিল্লা
প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ১২, ২০২৩ । ৯:৩৩ অপরাহ্ণ
চিতই পিঠার মধ্যেই সন্তানদের ভবিষ্যৎ স্বপ্ন দেখেন মোমেনা

হেমন্তের ভেলায় চড়ে কুয়াশার চাদর গায়ে জড়িয়ে এসেছে শীত। চারদিকে বসেছে রঙবেরঙের হরেক রকম পিঠা বিক্রির আসর। সন্ধ্যে হলেই রাস্তার বাঁকে বাঁকে পিঠা বিক্রি করে থাকেন পিঠা বিক্রেতারা। তেমই এক পিঠা বিক্রেতা মোমেনা আক্তার। শীতের এই পিঠা বিক্রির মধ্যেই তিন সন্তনের ভবিষ্যৎ স্বপ্ন দেখেন স্বামী পরিত্যক্তা এই কর্মবীর নারী।

বলছিলাম কুমিল্লা পদুয়ার বাজার বিশ্বরোডস্থ পুরাতন বাজার সংলগ্ন এলাকার এক কোনে বসে পিঠা বিক্রি করা মোমেনার কথা। মোমেনার বাড়ি দেশের একেবারে উত্তরাঞ্চলের জেলা কুড়িগ্রামে। প্রথমে দরিদ্র পরিবারের মেয়ে হিসেবে বে্রে উঠে পরবর্তী জীবনে স্ত্রী হন আরেক দরিদ্র দিনমজুরের। অভাবের সাথে সংগ্রাম করে শুরু হয় দাম্পত্য জীবন। এরই মধ্যে তার কোল জুড়ে করে আসে দুই পুত্র ও এক কন্যা সন্তান। এমনিতেই অভাব অনাটনের সংসার তার ওপর তার স্বামী করেছে দ্বিতীয় বিবাহ। স্বামীর দ্বিতীয় বিবাহ মনেপ্রাণে মেনে নিতে পারেননি মোমেনা। তাই মনের কষ্টে ৩ সন্তান নিয়ে চলে আসেন কুমিল্লায়।

কুমিল্লা পদুয়ার বাজার বিশ্বরোড বাসা ভাড়া নিয়ে থাকেন এই মোমেনা আক্তার। শীত মৌসুমে বিক্রি করেন শীতের চিতই পিঠা। আর অন্যসময় নানারকম কাজ করে বাচ্চাদের পড়াশোনার খরচ, বাসাভাড়া ও অন্যান্য যাবতীয় খরচ চালান এই পরিশ্রমী নারী। ৭ডিসেম্বর সন্ধ্যায় পদুয়ার বাজার গিয়ে দেখা গেলো মোমেনা আক্তার বাজারের এক কোনে পিঠা বানাচ্ছে আর তার দোকান ঘিরে আছে নানা বয়সী পিঠা খাওয়া লোকজন। বাহারী রকমের ভর্তা দিয়ে তিনি পিঠা তৈরি করেন। ভর্তার মধ্যে আছে সরিষার ভর্তা, সুটকির ভর্তা, কাঁচা মরিচের ভর্তা।

পিঠা খেতে আসা স্কুল শিক্ষক আলমগীর হোসেন বলেন, এই সিজনে এইদিক দিয়ে যখনি আমি যাই মোমেনার পিঠা খেয়ে যাই। মোমেনার হাতে যষ আছে। তাছাড়া পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন ভাবে পিঠা তৈরি করে।

পিঠা বিক্রেতা মোমেনা বলেন, নানা রকম ভর্তা দিয়ে গরম-গরম পিঠা খেয়ে মানুষ অনেক খুশি হন। তাদের খুশিতেই আমি খুশি।

আপনার স্বপ্ন কি জানতে চাইলে মোমেনা আক্তার বলেন, মাগো আমি যেনো চিতই পিঠা বিক্রি করেই তিন সন্তান মানুষ করতে পারি। আমার সন্তানরা যেনো ভবিষ্যতে আমার মতো পিঠা বিক্রি করতে না হয় দোয়া করবেন।

পুরোনো সংখ্যা

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১