চাঁপাইনবাবগঞ্জে দুই দিনের ব্যবধানে পেঁয়াজের ডাবল সেঞ্চুরি


রিপন আলী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি
প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ১০, ২০২৩ । ৭:০১ অপরাহ্ণ
চাঁপাইনবাবগঞ্জে দুই দিনের ব্যবধানে পেঁয়াজের ডাবল সেঞ্চুরি

চাঁপাইনবাবগঞ্জে কোন কারন ছাড়াই খুচরা ব্যবসায়ীরা নিজেদের খেয়াল খুশিমত বৃদ্ধি করেছেন পেঁয়াজের দাম। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে জনগনকে সরকারের বিপক্ষে দাঁড় করানোর জন্য সিন্ডকেট তৈরী করে প্রকাশ্যে ইচ্ছামত দোকানদারগণ পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি করেছেন। বিষয়টি দেশের বিভিন্ন স্থানসহ চাঁপাইনবাবগঞ্জে টক অফ দ্যা টাউনে পরিনত হয়েছে। ক্রেতা সাধারন বলছেন, ভোক্তা অধিকারের লোকজন কোথায়? তারা কেন অভিযান পরিচালনা করছেন না।

জেলার বিভিন্ন বাজারের ব্যবসায়ীগণ এ অবৈধ কারবারটি করে এক দিনে লাখ লাখ টাকা ক্রেতা সাধারনের নিকট হতে হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। এদের বিরুদ্ধে ঘন ঘন অভিযান পরিচালনা করে ১০ থেকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা প্রয়োজন। তা না হলে এরা নিজেদের ইচ্ছামত পন্যের মূল্য বৃদ্ধি করতে থাকবেন বলে সচেতন মহল মনে করেন।

শনিবার বিকেলে জেলার নাচোল উপজেলার মল্লিকপুর  হাটে ভারতীয় পেঁয়াজর বিক্রি হয়েছে ১৭০/১৮০ টাকা কেজি দরে। কিন্তু একদিনের ব্যবধানে রবিবার বিকেলে শিবগঞ্জ উপজেলার চককীত্তি হাটে। সেই পেঁয়াজ  বিক্রি হচ্ছে ২০০/২২০ টাকা কেজি দরে। এ দাম বৃদ্ধির কারণ হিসেবে খুচরা ব্যবসায়ীরা পাইকারী ব্যবসায়ীদের উপর দোষ চাপাচ্ছেন।

এদেরকে চককীত্তি হাটের পিঁয়াজ বিক্রেতা শরিফুল ইসলাম জানান ভারতীয় প্রিয়া যাচ্ছে বন্ধ হয়ে যাওয়ায় পিঁয়াজ এর দাম বৃদ্ধি হয়েছে যদি আবার ভারতীয় পেঁয়াজ আসে তাহলে দাম আবার নিয়ন্ত্রণে আসবে।

গত সপ্তাহে পেঁয়াজের দাম ৮০/৮৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হলেও তিন দিনের ব্যবধানে পেঁয়াজ সিন্ডিকেট লাগাহীন মূল্যবৃদ্ধি করলো, এদের বিরুদ্ধে তদন্তকরে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে । শনিবার সন্ধ্যার পর শিবগঞ্জ বাজারে এ প্রতিবেদক পেঁয়াজের দাম সম্পর্কে জানতে বিভিন্ন দোকানে গিয়ে জানার চেষ্টা করেন। এসময় কয়েকজন দোকান মালিক বলেন, পেঁয়াজ নেই, শেষ হয়ে গেছে, কোন কোন দোকান মালিক পেঁয়াজ সরিয়ে ফেলেছেন। সামান্য কিছু পেঁয়াজ বস্তায় রেখে বিক্রি করছেন ১৩৫ টাকা কেজি দরে।

শিবগঞ্জ উপজেলা নিবার্হী অফিসার আবুল হায়াতের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, পেঁয়াজের বাজার অস্তির করার চেষ্টা করছেন ব্যবসায়ী সিন্ডিকেট তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। কোন ভাবে ছাড় দেয়া হবে না।

পুরোনো সংখ্যা

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১