টানা তৃতীয়বার আ.লীগে মনোনয়নে উচ্ছ্বসিত দেশবরেণ্য কণ্ঠশিল্পী মমতাজ


অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশের সময় : নভেম্বর ২৭, ২০২৩ । ৬:০১ অপরাহ্ণ
টানা তৃতীয়বার আ.লীগে মনোনয়নে উচ্ছ্বসিত দেশবরেণ্য কণ্ঠশিল্পী মমতাজ

আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকায় তারকা আসন খ্যাত ১৬৯, মানিকগঞ্জ-২ আসন থেকে টানা তৃতীয়বারের মতো দলীয় মনোনয়নের টিকিট পেয়েছেন বর্তমান সংসদ সদস্য, সিংগাইর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি দেশবরেণ্য কণ্ঠশিল্পী মমতাজ বেগম।

রোববার (২৬ নভেম্বর) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে দলীয় মনোনীত প্রার্থীদের নামের তালিকা ঘোষণা করেন দলটির সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

এ দিন রাতে মুঠোফোনে টানা তিনবার দলীয় মনোনয়ন পাওয়া প্রসঙ্গে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে মমতাজ বেগম জানান, আমি কৃতজ্ঞতা জানাই এই বাংলাদেশের স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা টানা তিনবারের রাষ্ট্রনায়ক দলীয় সভাপতি দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনাকে। কারণ তিনিই আমাকে এই আসন থেকে টানা দুই বার সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচনে অংশগ্রহণের সুযোগ দিয়েছেন এবং আমি নির্বাচিত হয়ে যথাযথভাবে জনগণের সেবা করার চেষ্টা করেছি। তারই ধারাবাহিকতায় নেত্রী এবারও আমাকে মনোনীত করে নির্বাচনে অংশ গ্রহণের সুযোগ করে দিয়েছেন। আমি আশা করছি, আমার নির্বাচনী এলাকার আপামর জনগণ এবারও নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আমাকে সংসদে কথা বলার সুযোগ করে দেবেন। কারণ নৌকা মমতাজের ব্যক্তিগত প্রতীক নয়, এটা জাতির জনকের প্রতীক, এটা স্বাধীনতার সপক্ষের প্রতীক, এটা জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতীক।

তিনি আরও বলেন, নৌকা প্রতীকে ভোট দেওয়া মানেই শুধু মমতাজকে ভোট দেওয়া নয়। নৌকা মানেই হলো সরাসরি শেখ হাসিনাকে ভোট দেওয়া। তাই আমার নির্বাচনী এলাকার জনগণকে একটা কথাই বলব, দেশ ডিজিটাল হয়েছে। ডিজিটাল থেকে এখন স্মার্ট বাংলাদেশের দোরগোড়ায়। তাই নৌকায় ভোট দিয়ে আমাকে আবার ওই জাতীয় সংসদে যাওয়ার সুযোগ করে দিলে স্মার্ট বাংলাদেশের অংশ হিসেবে আমার নির্বাচনী এলাকার জনগণ যেন সর্বপ্রথম স্মার্ট বাংলাদেশের সুযোগ- সুবিধা পায়, সে ব্যবস্থাই করার চেষ্টা করব, ইনশাআল্লাহ।

বিগত দিনে আওয়ামী লীগ সরকারের উন্নয়ন নিয়ে মমতাজ বলেন, উন্নয়নের কথা বলে তো শেষ করা যাবে না। আমার নির্বাচনী এলাকায় আওয়ামী লীগ সরকারের টানা ১৫ বছরে মানিকগঞ্জ থেকে হেমায়েতপুরের আঞ্চলিক মহাসড়ক, সিংগাইর-হরিরামপুর দুই উপজেলার সেতুবন্ধনে কালিগঙ্গা নদীর ওপর বালিরটেক ব্রিজ করা হয়েছে। হরিরামপুরের প্রধান সমস্যা ছিল পদ্মা ভাঙন। নদীভাঙন রোধেই হরিরামপুরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শত শত কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন। সংসদ সদস্য হিসেবে আমি ছিলাম অসিলা, আর বরাদ্দ দিয়েছেন কিন্তু শেখ হাসিনা। নদীভাঙন রোধে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে শত শত কেটি টাকার কাজ করেছি। চরাঞ্চল ভাঙন রোধেও এবার আমরা আজিমনগর, সুতালড়ী ও লেছড়াগঞ্জ ইউনিয়নের জিও ব্যাগ ফেলেছি। এ ছাড়াও বিদ্যুৎ থেকে শুরু করে গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়নে রাস্তাঘাট, ব্রিজ, কালর্ভাট, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বহুতল ভবনসহ হয় নাই কী? আরও অনেক প্রকল্প এখনও চলমান ও প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। আওয়ামী লীগ সরকারের ১৫ বছরে হরিরামপুরেই কেবল হাজার কোটি টাকার ওপরে উন্নয়নমূলক কাজ হয়েছে।

নির্বাচন নিয়ে দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে মমতাজ বেগম বলেন, আগামী ৭ জানুয়ারি ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। আওয়ামী লীগ ও সহযোগী অঙ্গ সংগঠনের সকল নেতাদের প্রতি একটাই অনুরোধ থাকবে, সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে শেখ হাসিনার নৌকাকে বিজয়ী করে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ায় সার্বিক সহযোগিতা করতে হবে। আমি বিশ্বাস করি, জাতির জনকের আদর্শকে যারা ধারণ করেন, লালন করেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বকে যারা শ্রদ্ধার সাথে মানেন, তারা সকলেই বঙ্গবন্ধুর নৌকা, শেখ হাসিনার নৌকাকে বিজয়ী করতে অবশ্যই সর্বদা ভোটের মাঠে থাকবেন। মনে রাখবেন, নৌকাকে জয়ী করে, শেখ হাসিনাকে প্রধানমন্ত্রী বানিয়ে আমরা ঘরে ফিরব, ইনশাআল্লাহ।

উল্লেখ্য, নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তপশিল অনুযায়ী, নির্বাচনে প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন ৩০ নভেম্বর যাচাই-বাছাই হবে ১ থেকে ৪ ডিসেম্বর, মনোনয়ন আপিল ও নিষ্পত্তি ৬ থেকে ১৫ ডিসেম্বর, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ১৭ ডিসেম্বর। প্রতীক বরাদ্দ হবে ১৮ ডিসেম্বর এবং নির্বাচনী প্রচার ১৮ ডিসেম্বর থেকে ৫ জানুয়ারি সকাল ৮টা পর্যন্ত চলবে এবং ভোটগ্রহণ করা হবে ৭ জানুয়ারি।

 

সূত্র: কা/বে

পুরোনো সংখ্যা

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০