সর্বশেষ :

মৌলভীবাজারে নৌকার মাঝি হলেন যারা


কপিল দেব, মৌলভীবাজার বিশেষ প্রতিনিধি
প্রকাশের সময় : নভেম্বর ২৬, ২০২৩ । ১১:০১ অপরাহ্ণ
মৌলভীবাজারে নৌকার মাঝি হলেন যারা

আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ৩০০ আসনের মধ্যে ২৯৮টি আসনের প্রার্থী চূড়ান্ত করেছে আওয়ামী লীগ। রবিবার (২৬ নভেম্বর) বিকেলে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে চূড়ান্ত হওয়া প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

মৌলভীবাজার-১ আসনে শাহাব উদ্দিন, মৌলভীবাজার-২ আসনে শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল, মৌলভীবাজার-৩ আসনে জিল্লুর রহমান, মৌলভীবাজার-৪ আসনে উপাধ্যক্ষ আবদুস শহীদ।

মৌলভীবাজার-১ (বড়লেখা-জুড়ী) আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন চার বারের সংসদ সদস্য পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন। দলের প্রতি তার ত্যাগ-তিতিক্ষা, এলাকার স্বার্বিক উন্নয়ন এবং সমাজে ভালো মানুষ হিসেবে পরিচিতি ও গ্রহণযোগ্যতা থাকায় দলের পক্ষ থেকে এবারও এই আসনে তাকে পঞ্চমবারের মতো মনোনয়ন দিয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ।

মো. শাহাব উদ্দিন প্রথমে ১৯৯৬ সালে এ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। পরে ২০০৮, ২০১৪ ও ২০১৮ পরপর তিনবার আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীক নিয়ে এ আসন থেকে তিনি নির্বাচিত হন। সবমিলে তিনি চারবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন।

১৯৯৬ সালে প্রথম বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পেয়ে বিএনপির হেভিওয়েট প্রার্থী সাবেক প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট এবাদুর রহমান চৌধুরীকে পরাজিত করে এমপি নির্বাচিত হন মো. শাহাব উদ্দিন।

২০০৮ সালে আবারো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। সে ধারাবাহিকতায় ২০১৪ সালের দশম জাতীয় সংসদে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তখন তাকে জাতীয় সংসদের হুইপ নির্বাচিত করেন। তখন সফলতার সাথে তিনি এ দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৮ সালে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নির্বাচিত হয়ে তিনি পরপর তিনবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। এই মেয়াদে তাকে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মতো বড় দায়িত্ব দেন প্রধানমন্ত্রী।

মৌলভীবাজার-২ আসনে নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম নাদেল। মৌলীভীবাজার-২ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক সুলতান মোহাম্মদ মনসুর। গত নির্বাচনে ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচিত হন তিনি।সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি নাদেল গত নির্বাচনেও এ আসনে মনোনয়ন চেয়েছিলেন।

মৌলভীবাজার-৩ (রাজনগর-মৌলভীবাজার সদর) আসনে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী হিসেবে মনোনীত হয়েছেন ওলিলা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. জিল্লুর রহমান।

এ খবর প্রকাশের পরপর রাজনগরে এক জায়গায় জড়ো হতে থাকেন জিল্লুর রহমান সমর্থকরা। এসময় তারা জিল্লুর রহমানের নাম নিয়ে বিভিন্ন ধরলের স্লোগান দিতে থাকেন।

এদিকে মৌলভীবাজার-৩ সংসদীয় আসনে জিল্লুর রহমানকে মনোনয়নের মধ্য দিয়ে রাজনীতিতে দীর্ঘদিন পর আলোচনায় রাজনগর উপজেলায়। কয়েক যুগ পর এ উপজেলার কেউ সংসদীয় আসনের নির্বাচনের জন্য মনোনীত হওয়ায় এলাকাবাসীও সাধুবাদ জানাচ্ছেন।

এদিকে নাম ঘোষণার পর মনোনীত প্রার্থী জিল্লুর রহমান সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এক স্ট্যাটাসে লিখেছেন, তারণ্য নির্ভর স্মার্ট বাংলাদেশ নির্মানের যে অঙ্গিকার আর সে পথের যাত্রায় বাংলাদেশ আওয়ামিলীগের সভাপতি, জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমাকেও এই যাত্রায় সঙ্গী করায় মাননীয় নেত্রীর প্রতি মৌলভীবাজার-রাজনগর বাসীর পক্ষ থেকে কৃতজ্ঞতা।

মৌলভীবাজার-৪ (শ্রীমঙ্গল-কমলগঞ্জ) আসন থেকে ৭ম বারের মতো মনোনয়ন পেলেন সাবেক চিফ হুইপ, বীর মুক্তিযোদ্ধা উপাধ্যক্ষ ড. মো.আব্দুস শহীদ। তিনি শ্রীমঙ্গল-কমলগঞ্জ নির্বাচনী এলাকার বর্তমান ও টানা ছয়বারের সংসদ সদস্য এবং জাতীয় সংসদের অনুমিত হিসাব সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি।

বীর মুক্তিযোদ্ধা উপাধ্যক্ষ ড. মো.আব্দুস শহীদ এর আগে তিনি সপ্তম জাতীয় সংসদে সরকার দলীয় হুইপ, অষ্টম সংসদে বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ ও নবম জাতীয় সংসদে সরকার দলীয় চিফ হুইপের দায়িত্ব পালন করেন। এবার নিয়ে ৭ম বারের মতো তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাওয়ায় তাঁর নির্বাচনী এলাকার নেতাকর্মী ও সাধারণ সমর্থকরা আনন্দে উল্লাসে মেতে উঠেন।

বিশেষ করে মনোনয়ন পাওয়ার খবরে চা বাগান অধ্যুষিত এই আসনের বিভিন্ন চা বাগানে সাধারণ চা শ্রমিকরা শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে তাৎক্ষণিক আনন্দ মিছিল বের করেন।

উপাধ্যক্ষ ড. মো. আব্দুস শহীদ এমপি ১৯৯১ সাল থেকে ২০১৮ পর্যন্ত টানা ছয়বার এই আসনে সংসদীয় আসনে বারবার জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন। বিশিষ্ট পার্লামেন্টারিয়ান, বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ, দলের প্রতি একাগ্রতা ও আনুগত্য, এলাকার উন্নয়ন, শিক্ষাবিদ বিবেচনায় তাঁকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

তাঁকে সাংগঠনিক দক্ষতা ও দীর্ঘসময়ের রাজনৈতিক অভিজ্ঞতাকে বিবেচনায় রাখার পাশাপাশি চা বাগানে শিক্ষার প্রসার, এলাকায় যোগাযোগ, নেতাকর্মীদের সাথে সুসম্পর্ক এসব বিবেচনায়ও তাকে মনোনয়ন পেতে অগ্রাধিকার দিয়েছে।

৭ম বারের মতো আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়ে উপাধ্যক্ষ ড. মো. আব্দুস শহীদ গণমাধ্যমকে বলেন,সকলের দোয়া-আর্শীবাদ, ভালোবাসা ও শুভকামনায় আমার এলাকার প্রিয় নেতাকর্মী ভাইবোনদের পরিশ্রমের ফসল আওয়ামীলীগের এ মনোনয়ন। সেজন্য জননেত্রী শেখ হাসিনা ও মনোনয়ন বোর্ডের সবার প্রতি চিরকৃতজ্ঞ।

উল্লেখ” ১৫ নভেম্বর সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন।

তফসিল অনুযায়ী, প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ তারিখ ৩০ নভেম্বর। মনোনয়নপত্র বাছাই হবে আগামী ১ থেকে ৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত। রিটার্নিং অফিসারের আদেশের বিরুদ্ধে কমিশনে আপিল দায়ের ও নিষ্পত্তি হবে ৬ থেকে ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ১৭ ডিসেম্বর। প্রতীক বরাদ্দ ১৮ ডিসেম্বর। নির্বাচনী প্রচারণা চলবে ১৮ ডিসেম্বর থেকে ৫ জানুয়ারি সকাল ৮টা পর্যন্ত। আর ভোটগ্রহণ হবে আগামী ২০২৪ সালের ৭ জানুয়ারি রবিবার অনুষ্ঠিত হবে।

পুরোনো সংখ্যা

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০